প্রিয়জনের সঙ্গে শেয়ার করুন :--👍

 30 total views

সিনাই গাঙে ফের এসেছে জোয়ার
ভেঙে ফেলো মনের খোঁয়াড়।
শান্ত নদী হ’য়েছে অশান্ত, কার বিরহে তুমি ক্লান্ত
জলে টলমল যৌবন,অঙ্গে মাখিয়েছে ঢোলকমল।
উত্তাল লহরী যৌবন-তরঙ্গে নিত্য ভাঙে তীর
তা দ্যাখে দেয়ালে ঠুকে গরীবের শির।
নটীর মতো হাসছে নদী দ্যাখে কৃষকের কান্না
আর বুঝি চুলোয় হবেনা দুমুঠো ভাত রান্না।
গাঙের পাড়ে বাড়ি মোর, বুকফাঁটা আহাজারি
ক্ষুরধার স্রোতের কলকলধ্বনি, জেগে উঠে শোকের খনি।
তলিয়ে যায় যদি মোর ঘর বাঁধবো কোথা গিয়ে
খোলা আকাশের নীচে থাকতে আসবে নাকো মোর প্রিয়ে।
ফের এসেছে যৌবন পাতা ঝরা জারুল গাছে
সবুজ পল্লবে ভরপুর ডাল, সিনাই গাঙ হলো মোর কাল।
নির্মল হাওয়ায় দোলে বেগুনি রংয়ের ফুল
খোঁপায় গুঁজে দেবো এসো যদি প্রিয় মাড়িয়ে সব ভুল।
প্রিয়ার কোমরের মতো খায় দোল সিনাই নদীর জল
যৌবনবতী তটিনী বর্ষার আগে এতো রাগ দ্যাখিনি।
জারুলের ঝরা ফুল ভেসে গিয়ে বসে প্রিয়ার কোল
নাকে নিয়ে শুঁকে, মোর ঘ্রাণ পেলে বিবর্ণমুখের মালিন্যতা যদি হটে।
সিনাই গাঙে ফিরে এসেছে যৌবন, টইটম্বুর জলে
কিশোরী কানে দেয় দোল ঢোলকলমি ফুল।
পশ্চিম পাশে দাদাবাড়ী, পূর্বপাশে ভারত
মাঝখানেতে সিনাই নদী, উথলে উঠে ঢেউ।
দস্যু ছেলের দস্যিপনা মিশে আছে গাঙে
হঠাৎ দেখা হলে সে-ই দস্যিপনা ভিখ মাঙ্গে।
আজ-ও নীরবে কাঁদায় ছেলেবেলা, গোশাইস্থলের মিলনমেলা
ফিরে যেতে সাধজাগে ছোট্টবেলা খেলতে সিনাই গাঙে জলজ খেলা।

১৭/০৫/২০২২ সৌদি আরব

Publication author

মোঃ আকাইদ-উল-ইসলাম (মিটু সর্দার)। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলাধীন কসবা উপজেলার গোপীনাথপুর ইউনিয়নের অন্তর্গত বড়মুড়া গ্রামে ১৯৮৭ সালের ১০ই নভেম্বর, এক সম্ভান্ত্রশালী মুসলিম পরিবারে কবির জন্ম। কবির পিতার নাম নূরুল ইসলাম (মাষ্টার) আর পিতামহের নাম আলতাব আলী সর্দার
Comments: 0Publics: 93Registration: 02-04-2022
প্রিয়জনের সঙ্গে শেয়ার করুন :--👍
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments

একে অপরের কবিতায় মন্তব্য করে সমালোচনা করুন। আপনার পরিচিতি লাভ করুন।